গানের খেয়ার প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

বিনোদন বাজার ॥ রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক এবং নজরুলসঙ্গীত শিল্পী জোসেফ কমল রড্রিক্সকে সংবর্ধনা জানানোর মধ্য দিয়ে শুদ্ধ সঙ্গীত চর্চা কেন্দ্র গানের খেয়া প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করল।এ উপলক্ষে গত সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে ‘চিরদিনের গান’ শীর্ষক এক সঙ্গীতানুষ্ঠানেরও আয়োজন করেছে সংগঠনটি।গানের খেয়ার সভাপতি স্বপন কুমার দাসের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চিত্রশিল্পী সমরজিৎ রায় চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী অপর্ণা খান।সংগঠনের শিল্পীদের সম্মেলক গান ‘ও আমার দেশের মাটি তোমার পরে ঠেকাই মাথা’ এবং ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চলো রে’ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়। এরপর একে একে গাইলেন স্বপন কুমার দাস ‘আমি ফুলকে যে দিন ধরে বেঁধে আমার সাঁজি ভরেছি’ ও ‘তোমার ভুবনে ফুলের মেলায়’, অপর্ণা খান গাইলেন ‘তোমরা যা বলো তাই বলো’, ‘একা মোর গানের তরী’, দিপ্তী চৌধুরী শোনান ‘তোমায় গান শোনাবো’, ‘আমি কান পেতে রই’, শামসিয়া শাম্মি শোনান ‘আমার নয়ন ভুলানো’, ‘আমার হিয়ার মাঝে লুকিয়ে ছিলে’, প্রসেনজিৎ কর্মকার শোনান ‘একলা গড়ি, জলকে চলো’ ও ‘যেন কিছু মনে করো না’সহ ৩০টির মতো আধুনিক, রবীন্দ্র এবং নজরুলসঙ্গীত শোনান। এরপর অর্কেস্ট্রা সুরে মুগ্ধতা ছড়ান শ্যামল।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি শিল্পী সমরজিৎ চৌধুরী বলেন, যে দেশে শিল্পী আলাউদ্দিন খাঁর মতো গুণী শিল্পীর জন্ম হয়েছে, সে দেশে আমার জন্ম হয়েছে, এ জন্য আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি। আমরা ভাগ্যবান। অবশ্যই এই দেশে গুণীর জন্ম হবে।সমৃদ্ধ হবে বাংলাদেশ। গানের খেয়ার সভাপতি স্বপন কুমার দাস বলেন, হাঁটি হাঁটি পা পা করে আমরা প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করছি। গানের খেয়ার মাধ্যমে নতুন সঙ্গীত শিল্পী তৈরির কাজ করে চলেছি। এর মধ্য দিয়ে সমাজকে আলোকিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাব। অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত শিল্পী জোসেফ কমল রড্রিক্স এবং মিতা হকের পক্ষ থেকে তার ছাত্র ড. ফারজানা তাবাসসুম প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।